বাংলার বৃষ্টি

২৯.৩.২০০৯
ঢাকায় বছরের প্রথম বৃষ্টি দেখলাম। ১০ মিনিটের মধ্যা চারিদিক আঁধার হয়ে গেল। থমথমে অবস্থা। আকাশে মেঘের ঘনঘটা দেখবার মত ছিল। প্রথম আধা ঘণ্টা অবস্থা ছিল যাকে বলে “যত গর্জে তত বর্ষে না”। মনে হচ্ছিল বজ্র যেন বারান্দার ঠিক ওপরে নেমে এসে তাণ্ডব করছে। চোখ বন্ধ করলে মনে হয় স্রষ্টার লীলাখেলা তমার মুদিত নয়নের ঠিক সম্মুখে চলছে।
ঝিরঝির বৃষ্টি ক্ষণিকের মাঝেই ঝমঝমানিতে রূপান্তরিত হল। সেই সাথে চলল শিলার উদ্দাম পতনক্রিয়া। তার ঢংঢং- খটখট-ধমাধম- কত যে ধ্বনি!
পুরো পৃথিবীটাকে ( এবং সেই সাথে বলা বাহুল্য, ট্যাঙ্কের পানিকে) শীতল করে দিল বরুণদেব। বৃষ্টিটা মনে করিয়ে দিল, এ লিলা বাংলাদেশ ছাড়া কোথায় দেখবে? ইট-কাঠ-পাথরের বেড়াজাল তার মায়াবী রূপকে বিন্দুমাত্র ম্লান করতে পারেনি। এতাই বাংলার বৃষ্টির প্রকৃত স্বরূপ।

4 thoughts on “বাংলার বৃষ্টি”

Leave a Comment

Your email address will not be published.